বুধবার ১৯ জানুয়ারি ২০২২

| মাঘ ৬ ১৪২৮

মহানগর নিউজ :: Mohanagar News

প্রকাশের সময়:
১৩:০২, ৮ জানুয়ারি ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক

ব্যবসায়ীদের প্রস্তাবে ভোজ্যতেলের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত মঙ্গলবার

প্রকাশের সময়: ১৩:০২, ৮ জানুয়ারি ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক

ব্যবসায়ীদের প্রস্তাবে ভোজ্যতেলের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত মঙ্গলবার

ভোজ্যতেল

লিটারপ্রতি বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম ১৬০ টাকা থেকে ৮ টাকা বাড়ানোর প্রস্তাব করেন ব্যবসায়ীরা। নতুন দাম কার্যকর হলে খুচরা বাজারে লিটারপ্রতি মূল্য দাঁড়াবে ১৬৮ টাকা। তবে এ সিদ্ধান্তকে তাৎক্ষণিকভাবে অনুমোদন দেওয়া হয়নি। মূল্য নির্ধারণের সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য আগামী মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) দুইটি পরিশোধন কারখানা পরিদর্শন করার ঘোষণা দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এ এইচ এম সফিকুজ্জামান জানান, বর্তমানে ১ লিটার সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ১৬০ টাকায়। তা বাড়িয়ে ১৬৮ টাকা করতে চান ব্যবসায়ীরা। এ বিষয়ে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বৈঠক হয়েছে। কিন্তু ব্যবসায়ীদের এই দাবির সপক্ষে বৈঠক থেকে সমর্থন দেওয়া হয়নি।

তিনি বলেন, ‘আগামী মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) দুটি পরিশোধন কারখানা পরিদর্শন করা হবে। এরপর দাম নির্ধারণ নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। বৈঠকে ভোজ্যতেলের অভিন্ন মূল্য নির্ধারণ পদ্ধতি নিয়েও আলোচনা করা হয়।’

জানা গেছে, আন্তর্জাতিকবাজারে দাম বৃদ্ধির অজুহাত দেখিয়ে দেশে ভোজ্যতেল বাজারজাতকারী ব্যবসায়ীদের সমিতি ‘বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনার্স এ্যান্ড বনস্পতি মেনুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশন’ গত কয়েক মাস ধরে তেলের দাম বাড়াতে চাচ্ছে। কোন কোন মাসে তিন দফা দর বাড়ানোর প্রস্তাবও দিয়েছে সংগঠনটি।

ব্যবসায়ীদের দাবি, বর্তমানে যে দাম, তাতে তাদের লোকসান হচ্ছে। তবে সরকার দাম বাড়ানোর বিষয়ে এই মুহূর্তে কিছু ভাবছে না। এই পরিস্থিতিতে ব্যবসায়ীরা একতরফা নতুন দাম ঠিক করে আগামী ৮ জানুয়ারি থেকে কার্যকরের সিদ্ধান্ত নেয়। ভোজ্যতেল ভেদে লিটারে ৮ থেকে ১০ টাকা বাড়ানোর সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছিল তারা।

প্রসঙ্গত,  গত এক বছর ধরে দফায় দফায় বাড়ছে ভোজ্যতেলের দাম। ৪৮০-৫৩০ টাকার পাঁচ লিটারের বোতলজাত তেল কিনতে ভোক্তাকে খরচ করতে হচ্ছে ৭৩০-৭৬০ টাকা। এরপরও থামতে রাজি নন ব্যবসায়ীরা। দাম আরও বাড়ানোর জন্য সম্প্রতি বৈঠকে বসেন ব্যবসায়ীরা। বৈঠকে ভোজ্যতেলের বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠান টিকে গ্রুপ, সিটি গ্রুপ, এস আলম গ্রুপ, মেঘনা গ্রুপসহ বাংলাদেশ এডিবল অয়েল লিমিটেডের প্রতিনিধিদের সাথে বাংলাদেশ ব্যাংকের ফরেন এক্সচেঞ্জ পলিসি বিভাগ, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (মূসক গোয়েন্দা) ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া ভোজ্যতেলের দাম নির্ধারণের আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগ এবং ইনস্টিটিউট অব কস্ট এ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট এ্যাকাউন্ট্যান্টস অব বাংলাদেশ (আইসিএমএবি)-এর প্রতিনিধিরা।


 

এসবি/কেডি