বুধবার ১৯ জানুয়ারি ২০২২

| মাঘ ৬ ১৪২৮

মহানগর নিউজ :: Mohanagar News

প্রকাশের সময়:
১৮:০৫, ১৪ জানুয়ারি ২০২২

কক্সবাজার প্রতিনিধি

মহেশখালীতে সাংবাদিকদের ওপর সন্ত্রাসী হামলা 

প্রকাশের সময়: ১৮:০৫, ১৪ জানুয়ারি ২০২২

কক্সবাজার প্রতিনিধি

মহেশখালীতে সাংবাদিকদের ওপর সন্ত্রাসী হামলা 

মহেশখালীর শাপলাপুর মিয়া ব্রিজ এলাকার পাহাড়ী ঢালায় সামাজিক অনুষ্ঠান থেকে বাড়ি ফেরার পথে ৪ সাংবাদিকের ওপর হামলা চালিয়েছে সন্ত্রাসীরা। বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) মধ্যরাতে এ ঘটনা ঘটে। 

আহতরা হলেন- দৈনিক জনকণ্ঠের মহেশখালী প্রতিনিধি ফারুক ইকবাল, স্থানীয় দৈনিক কক্সবাজার বার্তার মহেশখালি প্রতিনিধি এসএম রুবেল, দৈনিক ইনানীর প্রতিনিধি আ ন ম হাসান ও এ কে রিফাত। 

এ হামলার নৈপথ্যে শাপলাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ডা. ওসমান সরওয়ার বলে দাবি করেছেন আহত সংবাদকর্মীরা। 

এ বিষয়ে আহত সাংবাদিক এসএম রুবেল বলেন, বন্দুকধারীরা আমাদেরকে মারধর করে, সঙ্গে থাকা ক্যামেরা ভাঙচুর করে। তবে আমাদের সঙ্গে থাকা মোবাইল, টাকা পয়সা লুট করেনি তারা। 

দৈনিক জনকণ্ঠের প্রতিনিধি ফারুক ইকবাল বলেন, আমাদের মারধর করার সময় ফের শাপলাপুর প্রবেশ না করার জন্য হুঁশিয়ারি দেন সন্ত্রাসীরা। এ সময় শাপলাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ডা. ওসমান সরওয়ারের নাম বারবার উচ্চারণ করে তারা বলেন, ‘ওসমানকে চিনস, ওসমান শাপলাপুরের বাঘ; লিখলে একদম গুলি মেরে ফুটো করে দিব।’

আহত  ইকবাল আরও বলেন, আমরা প্রথমে মনে করেছিলাম ডাকাত দল। কিন্তু তারা আমাদের কিছু নেইনি। শুধু হামলা করে বলেছেন- ওসমান হলো বাঘ। কি লিখস তোরা, মেরা ফেলব?

স্থানীয় দৈনিক ইনানীর মহেশখালি প্রতিনিধি আ ন ম হাসান  বলেন, গতবছর শাপলাপুরে একজন কলেজ ছাত্রকে পিঠিয়ে হত্যা করা হয়। তার পরিবারের দাবি, ওসমান তার গ্যাং নিয়ে তাকে হত্যা করেছে। পরে ওসমান এক দিনমজুরকে রাস্তায় মারধর করেন। তার নিষেধ সত্ত্বেও আমরা নিউজ করেছিলাম। এই কারণে তার শক্তির জানান দিতে, অস্ত্র ধরে কলম থামাতে আমাদের উপর হামলা করা হয়েছে। এখন আমরা জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কায় আছি।

তবে এসব অভিযোগ মিথ্যা দাবি করেছেন ডা. ওসমান। তিনি বলেন, এ ঘটনার সঙ্গে আমি জড়িত নই। আমাকে ফাঁসানোর জন্য প্রতিপক্ষরা আমার নাম ব্যবহার করেছে। আমিও হামলাকারীদের বিচার চাই।

এ বিষয়ে মহেশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল হাই  বলেন, আহতরা রাতে থানায় এসে ছিল। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে, সাংবাদিকদের ওপর সন্ত্রাসী হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে মহেশখালী উপজেলা প্রেসক্লাব ও রিপোটার্স ইউনিটি মহেশখালী শাখার নেতৃবৃন্দ। তারা দ্রুত হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবি জানান।

এসএ